আন্ডারগ্র্যাডে লেভেলে উচ্চশিক্ষা অর্জনের লক্ষ্যে দেশের বাইরে পড়তে যেতে চায় এমন  শিক্ষার্থীদের SAT 1 (এসএটি) পরীক্ষার রিডিং, রাইটিং ও ল্যাঙ্গুয়েজ এবং ম্যাথ সেকশনের সাথে একটি অপশনাল সেকশনে অংশগ্রহণের প্রয়োজন হতে পারে। এই সেকশনটি হলো Essay রাইটিং সেকশন।

SAT Essay সেকশনটি অপশনাল হলেও কিছু কিছু বিশ্ববিদ্যলয় রয়েছে যারা আবেদনের সময় নির্দিষ্ট করে SAT Essay সেকশনের স্কোর চেয়ে থাকে।

Essay রাইটিং সেকশনে একজন স্টুডেন্টকে ৫০ মিনিট সময়ের মধ্যে একটি Essay লিখতে হয়। SAT Essay সেকশনে ভালো স্কোর তোলার জন্য বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের উপর লক্ষ্য রাখতে হয়। আসো জেনেনেই এসএটি (SAT) Essay রাইটিং সেকশনে ভালো করার উপায়।

এসএটি (SAT) পরীক্ষার রিডিং-রাইটিং এবং ম্যাথ সেকশনের পাশাপাশি আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ সেকশন হলো Essay রাইটিং। “এসএটি (SAT) Essay রাইটিং: বাধ্যতামূলক নাকি অপশনাল?” জানতে ঘুরে আসো এসএটি (SAT) Essay রাইটিং: বাধ্যতামূলক নাকি অপশনাল? আর্টিকেল থেকে।

স্ট্রাকচারাল টিপস 

Essay রাইটিং এর স্ট্রাকচার  বিবেচনা করে কিছু টিপস নিচে আলোচনা করা হলো-

i. SAT Essay: থিসিস স্টেটমেন্ট এবং ভূমিকা 

SAT Essay পার্টে প্রথমেই তোমাকে ৬৫০-৭৫০ শব্দের একটি প্যাসেজ পড়তে হবে। তার উপর নির্ভর করে তোমাকে  Essay লিখতে হবে।  প্যাসেজ পড়ে মেইন আইডিয়া বুঝে, তোমরা নিজের মতো করে একটি থিসিস স্টেটমেন্ট লিখতে হবে। থিসিস স্টেটমেন্টটি এমন হবে যে তোমার থিসিস স্টেটমেন্ট পড়েই আর্গুমেন্ট পয়েন্ট সহজেই বোঝা যাবে।

যেহেতু প্যাসেজ দেয়া থকবে তাই খুব সহজেন তুমি তোমার আর্গুমেন্ট পয়েন্ট খুঁজে বের করতে পারবে। খুব বেশি ভাবনা-চিন্তা করতে হবে না।

SAT Essay পার্টে ভালো নাম্বার পেতে হলে অবশ্যই ভূমিকা থাকতে হবে। থিসিস স্টেটমেন্টকে প্রাধান্য দিয়ে তোমাকে ভূমিকা লিখতে হবে, যা তোমরা থিসিস স্টেটমেন্টের ব্যাখ্যা বলতে পারো। এই অংশ থেকে যেন পরীক্ষক সহজেই তোমরা Essay এর বিষয়বস্তু বুঝতে পারেন। পরীক্ষকে যেন এই অংশ আকৃষ্ট করে সে দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।

ii. SAT Essay: মেইন বডি

SAT Essay পার্টে তোমার জন্য একটি প্যাসেজ এবং গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট সমূহ উল্লেখ করা থাকেবে। তোমাকে বুঝতে হবে লেখক কি কি ফ্যাক্ট এবং ইনফরমেশন উল্লেখ করেছেন।

ফ্যাক্ট এবং ইনফরমেশন উপর নির্ভর করে তোমার  মতামতের পক্ষে যুক্তি প্রদান করে Essay লিখতে হবে।

তোমার লেখায় অবশ্যই লজিক এবং রেটরিক্যাল টেকনিক ব্যবহার করতে হবে। Essay’তে দু-তিনটি উদাহরণ দিতে পারলে খুবই ভালো হয়।

iii. SAT Essay: উপসংহার

উপসংহার হচ্ছে তোমার সম্পূর্ণ লেখার একটি সামারি। যাতে তোমার মতামত প্রাধান্য পাবে। এই অংশটিও ভালো নাম্বার পেতে আকর্ষণীয় হয়া খুবই প্রয়োজন।

জেনারেল টিপস 

রাইটিং স্কিল ডেভেলপ করার জন্য কিছু জেনারেল টিপস নিচে আলোচনা করা হলো-

০১. তোমার লেখায় শব্দের বৈচিত্র্য সৃষ্টি কর

আমরা লেখালেখিতে  প্রচলিত শব্দগুলো বেশি ব্যবহার করি। ভালো Essay লিখার জন্য বহুমাত্রিক শব্দ ব্যবহারে মনোযোগী হতে হবে। একই শব্দ  বারবার না লিখে শব্দের বৈচিত্র্য সৃষ্টি কর যায়। যেমন:

কোন লেখায় তুমি যদি একবার “love” শব্দটি ব্যবহার কর। তবে  “love” শব্দটির পরিবর্তে  fondness, intimacy, endearment ইত্যাদি ব্যবহার করা উত্তম।

কোন কিছু যোগ করতে চাইলে moreover, as well as, furthermore ব্যবহার করতে পারো।  আর যদি  বৈসাদৃশ্য দেখাতে চাও তবে but, however, on the other hand,  yet , on the contrary ইত্যাদি এবং কারণ বা কিছু ফলাফল প্রকাশে therefore,  so ,  as a result, consequently ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারো।

 

০২.গ্রামারে মনোযোগ দাও 

ইংরেজিতে ভাষায় লেখালেখির সময় আমাদের প্রথমই গ্রামারে মনোযোগ হতে হবে । গ্রামারে দুর্বল হলে তোমরা লেখাটি দুর্বোধ্য হয়ে উঠবে। তাই প্রতিদিন ইংরেজি গ্রামার আত্মস্থ করতে পারো।

উদাহরণসহ গ্রামার বুঝে বুঝে পড়ুতে হবে, মুখস্থ নয় কিন্তু !

কোন একটি ভালো ইংরেজি গ্রামার বই ‘রেফারেন্স’ হিসেবে ব্যবহার করতে পারো।

 

০৩.ভিন্নতা তৈরিতে  সুন্দর বাক্য লিখ 

লেখালেখির জন্য সুন্দর বাক্য লেখার অভ্যাস কর। ইন্টারনেট ঘেঁটে  কিছু টেমপ্লেট দেখে খুব সহজেই বাক্য গঠনরীতি শিখে নিতে পারো । একই বাক্যকে নানাভাবে লেখার চর্চা কর।

বাক্যে ফার্স্ট পারসন (“I” or “My”) ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকো।

The Purdue Writing Lab (Purdue University) থেকে বাক্যের গঠনরীতি সম্পর্কে জানার চেষ্টা করতে পারো।

 

০৪.অনুসরণ কর

তোমার যে লেখকের লেখার ধরন ভালোলাগে তা অনুসরণ করে লেখালেখির চর্চা করতে পারো।  প্রিয় লেখকের ভাবনা ও চিন্তাকে অনুসরন করার চেষ্টা করতে পারো।

যতক্ষণ নিজের লেখা পড়ে নিজেই খুশি হতে না পারছো,  ততক্ষণ চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে।

ফেসবুকে লেখার সময় ফর্মাল ভাষা ব্যবহার করা উত্তম। গ্রামারলি, জিনজার সফটওয়্যার ব্যবহার করে নিজের ভুল থেকে শিক্ষা নেবার চেষ্টা করতে হবে।

 

নিচের (SAT) Essay  টি একটি স্যাম্পল, যা Essay রাইটিং সম্পর্কে তোমাকে পূর্ণ ধারণা দিবে। কি কি বিষয় একটি ভালো Essay লিখতে  তোমাকে লক্ষ্য করতে হবে  তা এই স্যাম্পল Essay’তে থেকে জানতে পারবে। 

 

* হুলদ রং = গ্রামার এবং বানানের ভুল দেখাতে ব্যবহার হয়েছে

** নীল রং = Advance Vocabulary দেখাতে ব্যবহার হয়েছে

***বেগুনি রং = স্ট্রাকচারাল বিষয় সমূহ বুঝাতে ব্যবহার হয়েছে

 

উপরের বিষয় গুলোতে ফোকাস রেখে নিজের রাইটিংকে আরও সমৃদ্ধ এবং সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করতে পারো। যা এসএটি (SAT) Essay রাইটিং সেকশনে ভাল স্কোর তুলতে টনিক হিসাবে কাজ করবে।